চিড়িয়াখানা বন্ধ কবে ২০২৪

দীর্ঘদিন ব্যস্ত সময় পার করার পর আমরা নিজেদেরকে রিলাক্স বা পরিশোধিত করার জন্য বিভিন্ন পর্যটনকেন্দ্র ভ্রমণ করার পরিকল্পনা করে থাকি। তবে আমরা অনেকেই চাই এই ভ্রমণটা যেন আমাদের মনকে খুশি করার সাথে সাথে আমাদের জ্ঞান ও বৃদ্ধি করে। আমাদের এই ইচ্ছা চিড়িয়াখানা ভ্রমণ করার মাধ্যমে পূরণ হতে পারে।

যে প্রতিষ্ঠানে বন্য বিভিন্ন প্রাণী সংরক্ষণ ও গবেষণার জন্য বন্দী অবস্থায় লালন-পালন করা হয় সেই প্রতিষ্ঠানকে চিড়িয়াখানা বলে। অনেকেই চিড়িয়াখানা ভ্রমণ করার জন্য চিড়িয়াখানা বন্ধ কবে সেই সম্পর্কে জানতে চায়। নিচে চিড়িয়াখানা সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে।

চিড়িয়াখানা বন্ধ কবে ২০২৪

হাইকোর্ট চত্বরে ১৯৫০ সালে জীবজন্তুর প্রদর্শনশালা হিসাবে ছোট পরিসরের একটি চিড়িয়াখানা প্রতিষ্ঠিত করা হয়। যা ১৯৭৪ সালে ঢাকা মিরপুরে স্থানান্তরিত করা হয়। অতঃপর ১৯৭৪ সালের ২৩ জুন চিড়িয়াখানাটি উদ্বোধন এবং সর্বসাধারণের জন্য উন্মুক্ত করে দেওয়া হয়।

চিড়িয়াখানা ভ্রমণ করার জন্য চিড়িয়াখানা কবে বন্ধ এবং কবে খোলা থাকে তা জেনে আপনাকে যেতে হবে। কেননা বন্ধের দিন চিড়িয়াখানায় গেলে চিড়িয়াখানা কর্তৃপক্ষ আপনাকে ভেতরে ঢুকতে দিবেন না। বর্তমান সময়ে প্রতি রবিবার চিড়িয়াখানা বন্ধ থাকে।

জাতীয় চিড়িয়াখানার সাপ্তাহিক বন্ধ কবে

বর্তমান পৃথিবী একটি যান্ত্রিক পৃথিবীতে পরিণত হয়েছে। কেননা বর্তমানে মানুষ এতই ব্যস্ত সময় পার করে যে নিজেদেরকে দেওয়ার মতো সময় তাদের নেই। তাই এই যান্ত্রিক পৃথিবী থেকে মুক্তি পেতে অনেকেই বিভিন্ন পর্যটন কেন্দ্র তথা চিড়িয়াখানা ভ্রমণ করার সিদ্ধান্ত নিয়ে থাকে।

চিড়িয়াখানায় গেলে বিভিন্ন বিলুপ্তপ্রায় প্রাণীসহ যে সকল প্রাণী সচরাচর দেখা যায় না সে সকল প্রাণী দেখা ও জানা যায়। তবে চিড়িয়াখানা সপ্তাহে ৭ দিন খোলা থাকে না। চিড়িয়াখানা পরিষ্কার ও চিড়িয়াখানায় থাকা পশু পাখির পরিচর্যা সহ বিভিন্ন কাজ করার জন্য সপ্তাহে একদিন রবিবার চিড়িয়াখানা বন্ধ থাকে।

জাতীয় চিড়িয়াখানার টিকিট কত টাকা?

মিরপুরে অবস্থিত বাংলাদেশের জাতীয় চিড়িয়াখানায় প্রবেশ করতে হলে আপনাকে অবশ্যই একটি টিকেট কিনতে হবে। বাংলাদেশের জাতীয় চিড়িয়াখানায় সংরক্ষিত পশু পাখিদের খাবার বাবদ আনুমানিক ২৫ মিলিয়ন টাকা খরচ করা হয়ে থাকে।

চিড়িয়াখানার পশু পাখিদের খাবার ও পরিচর্যার জন্য যে টাকা খরচ হয় তার একটা বড় অংশ দর্শনার্থীদের টিকেটের টাকা থেকে আসে। মিরপুর চিড়িয়াখানায় প্রবেশ করতে হলে আপনাকে ৫০ টাকা মূল্যের একটি টিকিট ক্রয় করতে হবে। তবে আপনি যদি স্টুডেন্ট হয়ে থাকেন এবং আপনার কাছে যদি আইডি কার্ড থাকে তাহলে আপনি ২৫ টাকায় টিকিট পেয়ে যাবেন।

মিরপুর চিড়িয়াখানার সময়সূচী

প্রতিবছর প্রায় ৩০ লাখ দর্শণার্থী বাংলাদেশের ঢাকায় অবস্থিত জাতীয় চিড়িয়াখানা ভ্রমণ বা পরিদর্শন করে থাকে। আপনাকে চিড়িয়াখানা পরিদর্শন করতে হলে অবশ্যই সঠিক সময় চিড়িয়াখানার প্রবেশ গেটে উপস্থিত থাকতে হবে। শীত এবং গ্রীষ্মকালের জন্য আলাদা আলাদা সময়সূচী অনুযায়ী চিড়িয়াখানা পরিচালিত হয়ে থাকে।

গ্রীষ্মকালঃ গরমকালে তুলনামূলক দর্শনার্থী কম হয় তাই গ্রীষ্মকালে সকাল ৯ টা থেকে সন্ধ্যা ৬ টা পর্যন্ত চিড়িয়াখানা খোলা থাকে।

শীতকালঃ সকল পর্যটনকেন্দ্র গুলোতে শীতকালে দর্শনার্থী গরমকালের তুলনায় বেশি হওয়ায় সকাল ৮ থেকে বিকাল ৫ টা পর্যন্ত চিড়িয়াখানায় প্রবেশের অনুমতি থাকে।

শুক্রবার কি চিড়িয়াখানা বন্ধ থাকে?

বাংলাদেশের সাপ্তাহিক ছুটির দিন শুক্রবার। সারা সপ্তাহ কাজ করার পর শুক্রবার ছুটি পেলে অনেকেই পরিবার নিয়ে ঘুরতে যেতে চায়। তাই তাদের সুবিধার জন্য বাংলাদেশ সরকার শুক্রবার জাতীয় চিড়িয়াখানা খোলা রাখার ব্যবস্থা করেছে।

শেষ কথা

যারা ভ্রমণ পিপাসু মানুষ এবং বাংলাদেশের জাতীয় চিড়িয়াখানা ভ্রমণ করার জন্য চিড়িয়াখানা বন্ধ কবে জানতে চাচ্ছিলেন। আশা করছি আজকের এই পোস্ট থেকে চিড়িয়াখানা বন্ধ বা খোলার সময়সূচী সম্পর্কে বিস্তারিত ধারণা পেয়েছেন। ধন্যবাদ।