সৌদি আরবের রমজানের সময় সূচি ২০২৪

বিশ্বের সকল উন্নত শীল দেশ গুলোর মধ্যে সৌদি আরব । সৌদি আরব অর্থনৈতিক ভাবে অনেক বেশি উন্নত হওয়ায় বাংলাদেশ ও ভারত থেকে বহু বাঙালি বর্তমানে সৌদি আরবে প্রবাসী হিসেবে অবস্থান করছে। দীর্ঘ এক বছর পর রমজান মাস আমাদের মধ্যে উপস্থিত হয়েছে। তাই সৌদি আরবে অবস্থানরত বাংলাদেশ ও ভারতের অসংখ্য বাঙালি প্রবাসী ভাইয়েরা রমজান মাসের রোজা পালন করার উদ্দেশ্যে সৌদি আরবের রমজানের সময় সূচি ২০২৪ সম্পর্কে অনলাইনে অনুসন্ধান করছে।

সৌদি আরব বিশ্বের এক মাত্র দেশ যেখানে নন মুসলিম প্রবেশ নিষেধ। অর্থাৎ সৌদি আরব বিশ্বের এক মাত্র শতভাগ মুসলিম দেশ। তাই সৌদি আরবের সকল শ্রেণীর মানুষকেই রমজান মাসের ৩০ টি রোজা বাধ্যতামূলক পালন করতে হয়। সৌদি আরবে অবস্থিত বিভিন্ন মুসলিম প্রবাসী ভাইয়েরা সৌদি আরবের নাগরিক না হওয়ায় সৌদি আরবের রমজানের ক্যালেন্ডার ও রোজা পালন সময়সূচী সম্পর্কে অবগত নয়।

সৌদি আরবের রমজানের সময় সূচি ২০২৪

এ বছর সৌদি সরকারের অনুমোদিত সৌদি ইসলামিক ফাউন্ডেশন বা সৌদি আরব চাঁদ দেখা কমিটির দেওয়া তথ্য অনুযায়ী আগামী মার্চ মাসের দশ তারিখে রমজানের চাঁদ দেখা দেওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। তাদের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী ১০ তারিখ রমজানের চাঁদ দেখা দিলে ১১ তারিখ থেকে সৌদি আরবে রোজা পালন শুরু করা হবে।

সৌদি আরবে উপস্থিত যে সকল প্রবাসীরা সারা বছর ব্যস্ততার কারণে নফল রোজা করতে পারেন না তারা রমজানের রোজা পালন করার জন্য এ সময় প্রস্তুতি নিয়ে থাকে। তাই যে সকল প্রবাসী ভাইয়েরা সৌদি আরবের রমজানের সময় সূচি ২০২৪ অনলাইনে অনুসন্ধান করছে তাদেরকে এই পোষ্টের মাধ্যমে রমজানের সময়সূচী জানানো হবে।

রমজানের সময় সূচি ২০২৪ সৌদি আরবের

রমজান মাস বরকতময় একটি মাস। কেননা এই রমজান মাসে একটি বরকত ময় রাত মজুদ রয়েছে। প্রিয় নবী হযরত মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম রমজান মাস আসলে রোজা পালন করার সাথে সাথে এই বরকত ময় রাত তালাশ করতে বলেছে। তাই আজকের এই পোস্টে রমজান মাসের রোজা পালন করার জন্য সৌদি আরবের সেহরি ও ইফতারের সময়সূচি ২০২৪ উল্লেখ করেছি।

সৌদি আরবের রমজানের ক্যালেন্ডার

সৌদি আরবের চাঁদ দেখা কমিটি থেকে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী আগামী মার্চ মাসের ১১ তারিখ থেকে হিসাব করে ৩০ দিনের রমজানের ইসলামিক ক্যালেন্ডার প্রস্তুত করা হয়েছে। আজকের এই পোস্টের মাধ্যমে আমরা আপনাদেরকে রমজান মাসের রোজা পালন করার সুবিধার্থে তৈরি কৃত ইসলামিক ক্যালেন্ডার সম্পর্কে জানিয়ে দেবো।

রহমতের ১০ দিন

বিভিন্ন হাদিসে পাওয়া যায় রোজা সকল মুসলমানের জন্য রহমত নিয়ে আসে। রমজান মাস শুরু হলে রমজান মাসের প্রথম দিন থেকে হিসাব করে দশ দিন পর্যন্ত সময়কে রহমতের দিন বলা হয়। এই সময় মহান আল্লাহ পাকের অগণিত রহমত তার বান্দাদের উপর নাযিল হতে থাকে।

মাগফেরাতের ১০ দিন

আমরা মহান আল্লাহ পাকের ক্ষমা লাভের আশায় সারা বছর পাঁচ ওয়াক্ত ফরজ নামাজ আদায় করা সহ অসংখ্য ছোট বড় আমল করে থাকি। মহান রবের নিকট থেকে ক্ষমা পাওয়া সব থেকে সহজ। আরো সহজে ক্ষমা পাওয়ার মুখ্য সময় হলো রমজান মাসের মাঝের দশ দিন। কেননা এ ১০ দিনে মহান আল্লাহ তার অসংখ্য বান্দাকে ক্ষমা করে দেন।

নাজাতের ১০ দিন

সকল শয়তানের সরদার ইবলিশ প্রতিজ্ঞা করেছিল আমি আল্লাহর বান্দাদেরকে জাহান্নামে নিয়ে যাব। তবে মহান আল্লাহ তায়ালা ঘোষণা করেছেন কেউ যদি অনুশোচনা নিয়ে মহান আল্লাহর নিকট তওবা করে তাহলে আল্লাহ পাক তাকে জাহান্নাম থেকে নাজাতের ফায়ছালা করে দিবেন। তবে এই জাহান্নাম থেকে নাজাত পাওয়ার সংখ্যা রমজান মাসের শেষের ১০ দিনে অধিক গুনে বাড়িয়ে দেওয়া হয়।

সৌদিতে রোজা কবে

পৃথিবীর সকল দেশেই রোজা পালন কবে থেকে শুরু করতে হবে তা ওই দেশের ইসলামিক ফাউন্ডেশন বা চাঁদ দেখা কমিটি নির্ধারণ করে থাকে। সৌদি আরবের ইসলামিক ফাউন্ডেশন বা চাঁদ দেখা কমিটির প্রকাশ করা তথ্য অনুযায়ী আগামী মার্চ মাসের দ্বিতীয় সপ্তাহের চতুর্থ দিন থেকে রোজা পালন শুরু হবে। অর্থাৎ সৌদি আরবে আগামী সোমবার থেকে রোজা পালন করা হবে।

শেষ কথা

বাঙালি যে সকল ভাইয়েরা সৌদি আরবের রমজানের সময় সূচি ২০২৪ সম্পর্কে জানার জন্য অনলাইনে অনুসন্ধান করছিলেন। আশা করছি আজকের এই পোষ্টের মাধ্যমে রমজানের সময়সূচী সহ রমজানের ইসলামী ক্যালেন্ডার সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পেরেছেন। যা আপনাদের রমজান মাসের ৩০ টি রোজা সঠিকভাবে পালন করতে সাহায্য করবে।