২১ শে ফেব্রুয়ারি ছন্দ , উক্তি , ছোট কবিতা

বর্তমানে আমরা স্বাধীন বাংলাদেশে বসবাস করলেও তৎকালীন সময়ে বাংলাদেশ ছিল পাকিস্তানের অধীনে। পাকিস্তান সরকারের নির্যাতন নিপীড়ন সহ করতে হয়েছে অসংখ্য বাঙালি কে। পাকিস্তান সরকারের এই নির্যাতনকে প্রখর করার জন্য উর্দুকে পাকিস্তানের একমাত্র রাষ্ট্রভাষা ঘোষিত করে। যার ফলে বাঙালি জাতি পাকিস্তান সরকারের উপর অত্যন্ত ক্ষুব্ধ হয়।

বাংলাকে রাষ্ট্রভাষার মর্যাদা দিতে সর্বপ্রথম এই দেশের ছাত্রসমাজ এগিয়ে আসে এবং শুরু করে প্রখর আন্দোলন। যে আন্দোলনের পথ ধরেই বর্তমান স্বাধীন বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠার পথ সুগম হয়েছিল। বাঙালির এই সাহসিকতা কে সম্মান জানাতে প্রতিবছর ২১ শে ফেব্রুয়ারি ছন্দ, গান ও বিভিন্ন স্লোগান দিয়ে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন করা হয়।

২১ শে ফেব্রুয়ারি ছন্দ

১৯৫২ সালের ২১ শে ফেব্রুয়ারির চেতনায় বাঙালি জাতিকে সহ অধিকার আদায়ের আন্দোলনে উদ্বুদ্ধ করে। বাঙালি জাতির এই চেতনাকে সাধুবাদ জানাতে শহীদ মিনারে ফুল দিয়ে ও ২১ শে ফেব্রুয়ারি ছন্দ বলা সহ বিভিন্ন উপায়ে মাতৃভাষা দিবস পালন করা হয়ে থাকে।

১. ফেব্রুয়ারির আকাশে, রক্তের ছিটা দেখা যায়, ভাষার জন্য প্রাণ দিয়ে, শহীদরা হয়েছেন অমর।

২. একুশের সূর্য উঠেছে, রক্তে রাঙানো আকাশে, শহীদদের স্মৃতি বহন করে, আজকের এই দিন।

৩. “আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো,” গান গেয়েছিলো কতজন, ভাষার জন্য লড়াই করে, হয়েছিলেন শহীদ।

৪. রহিম, সালাম, বরকত, জব্বার, রফিক, শফিক, ভাষার জন্য প্রাণ দিয়ে, হয়েছিলেন অমর।

৫. কৃষ্ণচূড়ার ডালে ডালে, রক্তের ছিটা দেখা যায়, শহীদদের বলিদান, আমাদের মনে চিরস্থায়ী।

৬. ভাষার জন্য আত্মত্যাগ, একুশে ফেব্রুয়ারি, শোকের দিন, গর্বের দিন।

৭. একুশে ফেব্রুয়ারি, শুধু শোকের দিন নয়, এ ভাষা আমাদের অহংকার, এ ভাষা আমাদের জীবন।

৮. আমরা সকলে মিলে, বাংলা ভাষা বাঁচিয়ে রাখবো, এ ভাষা আমাদের অহংকার, এ ভাষা আমরা চিরকাল ভালোবাসবো।

৯. বাংলা ভাষা আমার মায়ের ভাষা, এ ভাষা আমার অহংকার।

১০. “বাংলা ভাষা আমার মায়ের ভাষা,” বলেছিলো রহিম, ভাষার জন্য লড়াই করে, হয়েছিলেন শহীদ।

২১ শে ফেব্রুয়ারি উক্তি

পাকিস্তানি শাসক গোষ্ঠীর বিরুদ্ধে ভষার জন্য এই সংগ্রামের পথ ধরেই স্বাধীন বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠা করা সম্ভব হয়েছে। বাঙালি জাতির এই সংগ্রামকে সঠিক মর্যাদা দিতে প্রতিবছর ফেব্রুয়ারির ২১ তারিখে বাংলাদেশের জাতীয় পতাকা অর্ধনমিতরাখা হয়।

১. “ভাষা হলো জাতির আত্মা।” – মহাত্মা গান্ধী

২. “ভাষা হলো মনের প্রকাশ।” – উইলিয়াম শেক্সপিয়ার

৩. “ভাষা হলো এক অস্ত্র। ভাষা দিয়ে মানুষকে হত্যা করা যায়, আবার ভাষা দিয়ে মানুষকে মুক্তিও দেওয়া যায়।” – রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর

৪. “মাতৃভাষা আমাদের অস্তিত্বের ভিত্তি।” – কাজী নজরুল ইসলাম

৫. “ভাষা আমাদের জীবনের প্রাণ।” – শেখ মুজিবুর রহমান

৬. “যে ভাষায় আমরা চিন্তা করি, সে ভাষায় আমরা স্বপ্ন দেখি।” – নেলসন ম্যান্ডেলা

৭. “ভাষা হলো সংস্কৃতির বাহন।” – রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর

৮. “ভাষা হলো জ্ঞানের চাবিকাঠি।” – ফ্রান্সিস বেকন

৯. “ভাষা হলো শক্তির উৎস।” – উইনস্টন চার্চিল

১০. “ভাষা হলো মানবতার আত্মা।” – রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর

একুশে ফেব্রুয়ারি নিয়ে ছন্দ

সমগ্র বিশ্বের হাজার হাজার মানুষের মুখে উচ্চারিত হয় হাজার হাজার রকমের ভাষা। মায়ের মুখের ভাষার প্রতি পৃথিবীর সকল মানুষের ভালোবাসা, মায়া, টান চিরন্তন। তবে বাঙালি জাতির মত নিজের মায়ের মুখের ভাষাকে রক্ষা করার জন্য আত্মত্যাগের ঘটনা ইতিহাসে বিরল।

১. একুশের সূর্য উঠেছে,
রক্তে রাঙানো আকাশে,
শহীদদের স্মৃতি বহন করে,
আজকের এই দিন।

২. ফেব্রুয়ারির আকাশে,
রক্তের ছিটা দেখা যায়,
ভাষার জন্য প্রাণ দিয়ে,
শহীদরা হয়েছেন অমর।

৩. “আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো,”
গান গেয়েছিলো কতজন,
ভাষার জন্য লড়াই করে,
হয়েছিলেন শহীদ।

৪. রহিম, সালাম, বরকত,
জব্বার, রফিক, শফিক,
ভাষার জন্য প্রাণ দিয়ে,
হয়েছিলেন অমর।

৫. কৃষ্ণচূড়ার ডালে ডালে,
রক্তের ছিটা দেখা যায়,
শহীদদের বলিদান,
আমাদের মনে চিরস্থায়ী।

৬. ভাষার জন্য আত্মত্যাগ,
একুশে ফেব্রুয়ারি,
শোকের দিন, গর্বের দিন।

৭. একুশে ফেব্রুয়ারি,
শুধু শোকের দিন নয়,
এ ভাষা আমাদের অহংকার,
এ ভাষা আমাদের জীবন।

৮. আমরা সকলে মিলে,
বাংলা ভাষা বাঁচিয়ে রাখবো,
এ ভাষা আমাদের অহংকার,
এ ভাষা আমরা চিরকাল ভালোবাসবো।

৯. বাংলা ভাষা আমার মায়ের ভাষা,
এ ভাষা আমার অহংকার।

১০. “বাংলা ভাষা আমার মায়ের ভাষা,”
বলেছিলো রহিম,
ভাষার জন্য লড়াই করে,
হয়েছিলেন শহীদ।

২১ শে ফেব্রুয়ারি ছোট কবিতা

১৯৫২সালের বাসা আন্দোলনে বাঙালি জাতির আত্মবিসর্জনের স্বীকৃতি দিতে বিশ্বব্যাপী প্রতিবছর ফেব্রুয়ারি মাসের ২১ তারিখে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন করা হয়। ফেব্রুয়ারি মাসের ২১ তারিখ ফুলে ফুলে রঙিন হয়ে ওঠে বাংলার সকল শহীদ মিনার। এ যেন ভাষা শহীদদের ফুল দিয়ে বরণ করে নেওয়ার দৃশ্য।

ভাষার জন্য,
প্রাণ দিয়েছেন যারা,
তাদের প্রতি,
শ্রদ্ধাঞ্জলি।

একুশে ফেব্রুয়ারি,
শোকের দিন,
ভাষা শহীদদের,
স্মরণের দিন।

রক্তে রাঙানো,
এই পতাকা,
ভাষার জন্য,
আমাদের অহংকার।

বাংলা ভাষা,
আমাদের মায়ের ভাষা,
এ ভাষা আমরা,
চিরকাল ভালোবাসবো।

একুশে ফেব্রুয়ারি,
শুধু শোকের দিন নয়,
এ ভাষা আমাদের অহংকার,
এ ভাষা আমাদের জীবন।

আমরা সকলে মিলে,
বাংলা ভাষা বাঁচিয়ে রাখবো,
এ ভাষা আমাদের অহংকার,
এ ভাষা আমরা চিরকাল ভালোবাসবো।

কৃষ্ণচূড়ার ডালে ডালে,
রক্তের ছিটা দেখা যায়,
শহীদদের বলিদান,
আমাদের মনে চিরস্থায়ী।

ভাষার জন্য আত্মত্যাগ,
একুশে ফেব্রুয়ারি,
শোকের দিন, গর্বের দিন।

আমরা সকলে মিলে,
বাংলা ভাষা বাঁচিয়ে রাখবো,
এ ভাষা আমাদের অহংকার,
এ ভাষা আমরা চিরকাল ভালোবাসবো।

বাংলা ভাষা আমার মায়ের ভাষা,
এ ভাষা আমার অহংকার।

“বাংলা ভাষা আমার মায়ের ভাষা,”
বলেছিলো রহিম,
ভাষার জন্য লড়াই করে,
হয়েছিলেন শহীদ।

শেষ কথা

বাংলা ভাষা বাংলাদেশের রাষ্ট্রভাষার মর্যাদা সহজে দেওয়া হয়নি। একুশে ফেব্রুয়ারি ভাষা শহীদদের বুকের তাজা রক্তের বিনিময়ে বাংলা রাষ্ট্রভাষার মর্যাদা লাভ করে। রাষ্ট্রভাষা বাংলার এই মর্যাদা কে অক্ষুন্ন রাখতে ২১ শে ফেব্রুয়ারি ছন্দ বা গান বলে বিভিন্নভাবে মাতৃভাষা দিবস পালন করা হয়ে থাকে।

আরও দেখুনঃ

শহীদ দিবস সম্পর্কে ১০ টি বাক্য

ছোটদের জন্য একুশের কবিতা

২১ শে ফেব্রুয়ারি নিয়ে ছোট কবিতা

২১ শে ফেব্রুয়ারি নিয়ে ছন্দ, উক্তি ও কবিতা

২১শে ফেব্রুয়ারি মহান মাতৃভাষা নিয়ে কবিতা

Md Tuhin
Md Tuhin